জ্যোতির্ময় মণ্ডল, মন্তেশ্বরঃ মন্তেশ্বর ব্লকের মামুদপুর ১ নম্বর অঞ্চলের  রায়গ্রামের গোরাচাঁদ মসজিদে চাঁদর চড়িয়ে দিদির সুরক্ষা কবচ কর্মসূচি শুরু করেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা মন্তেশ্বরের বিধায়ক সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। এদিন তিনি রায় গ্রামের বাজারের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে রায়গ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ে পরিদর্শনে যান। বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে বিদ্যালয়ের সুবিধা-অসুবিধা কথা জানতে চান মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। এলাকার বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রীকে কাছে পেয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা  ও ছাত্র-ছাত্রীরা বিদ্যালয়ের লাইব্রেরী, বিজ্ঞান বিভাগ, শিক্ষক সমস্যার কথা তুলে ধরেন এবং একটি লিখিত ভাবে জানান মন্ত্রীর কাছে।

সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে রাইগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের সমস্যার কথা সম্পর্কে গ্রন্থাগার মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বলেন, নাপিত দেখলেই নখ বাড়ে। 

পাশাপাশি দিদির সুরক্ষা কবচ কর্মসূচি উপলক্ষে  রাজ্যের মন্ত্রীকে কাছে পেয়ে  ড্রেন নালা, রাস্তা,   বার্ধক্য ভাতা বিধবা ভাতা সহ বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন এলাকার সাধারণ মানুষজন। রায় গ্রামের ৭০ বছরের এক ব্যক্তি বার্ধক্য ভাতা পায়নি বলে তুলে ধরেন এই কর্মসূচিতে। 

এছাড়াও এই কর্মসূচিতে মামুদপুর ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত চত্বর ও বিভিন্ন কর্মকান্ড ঘুরে দেখেন মন্ত্রী। কথা বলেন পঞ্চায়েতের কর্মচারী সহ পঞ্চায়েত প্রধান পারভিন মণ্ডলের সাথে। 

এদিন দিদির সুরক্ষা কবচ কর্মসূচিতে মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী-র সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বর্ধমান জেলা ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল তৃণমূল ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেসের সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ সেলিম, মন্তেশ্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রতিমা সাহা, সহ সভাপতি আহমেদ হোসেন শেখ, মন্তেশ্বর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি আজিজুল হক, মন্তেশ্বর ব্লকের সহ সভাপতি দেবপ্রিয় যশ,  মামুদপুর এক নম্বর অঞ্চলের প্রধান পারভিন মন্ডল, পঞ্চায়েতের  পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ জিন্নাত আলী মণ্ডল, মন্তেশ্বর ব্লক  শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি আতিকুর রহমান শেখ সহ আরও অনেকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here