অভিজিৎ হাজরা, আমতা, হাওড়াঃ ২০১৮ সালে কতিপয় যুবক -যুবতী নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা, একে অপরের সুখ – দুঃখের সাথী হওয়ার জন্য গড়ে তুলেছিলেন ‘ জনপ্রিয় আমতা ফেসবুক গ্ৰুপ।’ ২০১৮ সাল থেকে ২০২০ ই প্রথমার্ধ পর্যন্ত এই গ্ৰুপের সদস্য – সদস্যরা নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা -একে অপরের সুখ – দুঃখের সাথী হয়ে একে অপরের পাশে থেকে মানসিক দিক থেকে দুর্বল হয়ে পড়া সদস্য -সদস্যাদের পাশে থেকে নানান পরামর্শ দিয়ে মানসিক দিক থেকে তাদের সবল করা,প্রত্যেকে কিছু কিছু অর্থ দিয়ে তাদের আর্থিক সহায়তা করেছে। এলাকার উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন, বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করেছে। বিভিন্ন মেলায় প্রাথমিক চিকিৎসা শিবির সংগঠিত করেছে।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ” জীবে প্রেম করে যে জন,সে জন সেবিছে ঈশ্বর” বিবেকানন্দের এই বাণী কে পাথেয় করে গড়ে তোলেন “আমতা জনপ্রিয় সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি।” এই সোসাইটি ২০২০ – ২০২১ সালে সরকারি স্বীকৃতি প্রাপ্ত হয়েই মানুষের সেবায় সর্বদা নিয়োজিত।লকডাউন পরিস্থিতিতে, বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে আক্রান্ত মানুষদের পাশে থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া থেকে শুরু করে মানব সেবা, রক্তদান শিবির সহ নানান উন্নয়ন ও সেবামূলক কর্মকান্ডে সারা বছরই জড়িয়ে থাকে সোসাইটির সদস্য -সদস্যারা। বর্তমানে এই সোসাইটির সদস্য -সদস্যারা সংখ্যা ২৩ হাজার।যা ছড়িয়ে রয়েছে ভারতবর্ষ তথা সমগ্র বিশ্বে।এই সোসাইটির মূল মন্ত্রই হলো ” আর্তের পাশে থেকে প্রকৃত অর্থেই আত্নিক হাত বাড়িয়ে দেওয়া “, “সকলের সাথে, সকলের পাশে।”

এই সোসাইটি ইতিমধ্যেই প্রাকৃতিক দুর্যোগে, ঝড়, বন্যা, অগ্নিকাণ্ডে, লকডাউনের সময়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়িয়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, পরিবারের দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় রন্ধন সামগ্ৰী, বিছানা, মশারি, নতুন বাড়ি তৈরি করতে আর্থিকভাবে ও শ্রম দিয়ে সহায়তা করেছেন। শারদোৎসব এর সময়ে, শীতকালীন সময়ে নতুন বস্ত্র, শীতকালীন পোষাক, কম্বল, ব্ল্যাঙ্কেট বিতরণ করে আসছে নিজেদের আর্থিক সামর্থে্। বিভিন্ন মেলা – র অনুষ্ঠান স্থলে মেডিকেল শিবির করে চলেছে।

 এবার এই সোসাইটির সদস্য-সদস্যরা এগিয়ে এলো এক মেধাবী দুঃস্থ ছাত্রীর আর্থিক সমস্যায় পড়াশোনা বন্ধের সমস্যা সমাধানে।

কয়েক দিন আগেই ২০২৩ এর মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ হয়েছে। পরবর্তী শিক্ষা বর্ষের পরীক্ষার্থীরা যখন পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষার, সেই সময়েই হাওড়া সাঁতরাগাছি কেদারনাথ ইনস্টিটিউশন (গার্লস) স্কুলের ছাত্রী ও রামরাজাতলা নিবাসী অনামিকা ঘোষাল – এর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল। পিতৃহীন অনামিকা -র মা সামান্য কাজ করে সংসার চালিয়ে মেয়ের পড়াশোনার খরচ এতদিন চালিয়ে আসছিল।ধার – দেনা করে স্কুলের ভর্তি  করার টাকা যোগাড় করলেও বই, পড়াশোনা করার জন্য আনুষঙ্গিক শিক্ষা সামগ্রী কেনা, রেজিস্ট্রেশন ফ্রী কোনোটাই আর যোগাড় করে উঠতে পারছিলেন না অনামিকা – রমা। সংসার ও মেয়ের শোনা চালানোর জন্য বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ধার করতে হয়েছিল। একদিকে ধারের টাকা অন্য দিকে মেধাবী মেয়ের ভবিষ্যৎ ! কি করবেন যখন বুঝে উঠতে পারছিলেন না তখন যোগাযোগ করেন ‘ আমতা জনপ্রিয় সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি ‘ -র একনিষ্ঠ সদস্যা সুস্মিতা মন্ডল এর সঙ্গে। তিনি সুস্মিতা-কে সমস্ত বিষয়টা জানান।সব কিছু শোনার পর   ‘ আমতা জনপ্রিয় সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি -র পক্ষ থেকে অনামিকা -র স্কুলের ভর্তি ফ্রী, রেজিস্ট্রেশন ফ্রী,সমস্ত পাঠ্যপুস্তক, আনুষঙ্গিক শিক্ষা সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

সোসাইটির পক্ষ থেকে সতনু, মিলন মাখাল, বিশ্বজিৎ ধাড়া, অভিজিৎ কোলে,সেখ আনিসুর রহমান, মাধব বর, বিপাশা দত্ত, বিট্টু পাখিরা, হিমাংশু মালিক, প্রদীপ্ত, রিঙ্কা সহ আরও অনেক সদস্য -সদস্যারা জানালেন আগামী দিনে সোসাইটির সদস্য -সদস্যা সহ আর্ত মানুষদের আপৎকালীন আর্থিক সহায়তা করার জন্য ‘ আপৎকালীন ফান্ড ‘ তৈরির জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

                     

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here