নিখিল কর্মকার, নদীয়াঃ নদীয়ার রানাঘাটে  ১৫ বছরের নাবালকের সাথে  শারীরিক সম্পর্ক ১৩ বছরের নাবালিকার! পরিবারের পক্ষ থেকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেওয়া সত্বেও সন্তান প্রসবের পর পলাতক নাবালক কিশোর। অভিভাবকদের উদাসীনতায়  নাবালক নাবালিকা দের ইন্টারনেট, টিভি, প্রভৃতির অপব্যবহারের চরম সামাজিক অবক্ষয় নিদর্শন পাওয়া গেলো নদীয়ার রানাঘাটে। ঘটনাটি ঘটেছে ধানতলা থানার অন্তর্গত কুশবেড়িয়া গ্রামে।  নাবালিকার মায়ের দাবি, সপ্তম শ্রেণীতে পাঠরতা তার মেয়ে ৯ মাস আগে অপহরণ হয় স্কুলের যাওয়ার পথে বাড়িতে এসে কাউকে লজ্জায় ভয়ে মেয়ে কিছুই বলেনি। প্রথমবার ঋতুমতী হওয়ার পর, পরবর্তীতে না হওয়ার কারণে  ডাক্তারের কাছে গেলে, সেখানে  কয়েকটি পরীক্ষার পর জানা যায় ওই নাবালিকা গর্ভবতী।

এরপর মায়ের কাছে সে জানায়, ওই এলাকার নবম শ্রেণীতে পাঠরত ১৫ বছরের এক কিশোর শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করে।

ঘটনা গ্রামে জানাজানি হতেই ওই নাবালকের পরিবার  নাবালিকার পরিবারকে বিবাহের প্রতিশ্রুতি দেয়। তবে নাবালিকা  শিশু সন্তান প্রসব করার পর  ক্রমশই তার বাড়িতে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা অহরহ আসার কারণে ওই কিশোর  বাড়ি থেকে বেপাত্তা হয়ে যায় বলেই জানা গেছে এলাকায় সূত্রে l 

তবে সচেতন নাগরিকদের পক্ষ থেকে উঠছে প্রশ্ন!  সন্তানদের পর্যাপ্তসময় না দেওয়া এবং তাদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক না থাকার কারণে, এ ধরনের নানান ঘটনা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here