নিখিল কর্মকার, নদীয়াঃ শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালের কোয়ার্টারের একটি পরিত্যক্ত ঘরে, প্রকাশ্যে রাস্তার পাশে চলে মদ্যপানের আসর। অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ শান্তিপুর স্টেডিয়ামের সামনে এই রাস্তা দিয়ে মহিলা থেকে শিশু চলাচলের উপায় থাকে না সন্ধের পর থেকে। এর আগেও একাধিকবার এই নিয়ে সরব হয়েছিলেন এলাকাবাসী, জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে, প্রশাসন সকলেরই জানা ওই এলাকার পাশে জোড়া কালী বটতলার ববি কলোনিতে রাম ঘোষ, এবং হসপিটাল কোয়ার্টার কলোনিতে অরুণ বিশ্বাস নামে দুজন ব্যক্তি , নিয়মিত মদ বিক্রি করে থাকেন। সন্ধ্যার পর অকথ্য গালিগালাজের কথোপকথন পৌঁছায় প্রত্যেকের পরিবার নিয়ে বাস করা ঘরের মধ্যে। আর তারই প্রতিবাদ করেছিল ওই এলাকার সচেতন কিছু যুবক এবং বাড়ির মহিলারা। তারই ফলস্বরূপ রামদা এবং অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে চড়াও হয় মদ্যপায়ী, পাঁচ ছয় জন দুষ্কৃতী, এমনকি শিশু এবং মহিলাদের গায়ে হাত দেওয়া হয়, বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। 

গতকাল রাত সাড়ে বারোটা নাগাদ এ ঘটনার সাথে সাথেই শান্তিপুর থানায় ফোন করে জানানোর পরেও পুলিশ আসেনি বলেই, দাবি এলাকাবাসীর অবশেষে আজ সকালে পুনরায় মদ বিক্রি শুরু করলে, পাড়ার মহিলারা বাধা দেয়, আবারও তাদের উপর আক্রমণ আসে মদ বিক্রেতাদের পক্ষ থেকে। এরপর সকাল দশটা নাগাদ ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় পুলিশ, অরুণ বিশ্বাসের বাড়ি সার্চ করে ছপেটি মদ উদ্ধার করে, এলাকার মানুষ সমবেত হয়ে আবারও মাছ পিটিশন জমা দেয় শান্তিপুর থানায়। তারা লিখিতভাবে জানায় যথেষ্ট চিন্তায় রয়েছেন এলাকাবাসী আজ রাতে পুনরায় সন্ত্রাস চালাবে ওই দুষ্কৃতীরা। প্রশাসনিক আশ্বাস মিলে রাতের মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তারের এবং ওই স্থানে সারারাত পুলিশ পাহারায় থাকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here