নিখিল কর্মকার, নদীয়াঃ
আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, জেলা প্রশাসন থেকে শুরু করে ব্লক পর্যন্ত সর্বত্র চলছে সাবধানতা। গঙ্গার ভাঙন কবলিত এলাকা গুলি পরিদর্শন করেছেন সরকারি পদাধিকারীরা। প্রচারিত হয়েছে একাধিক কন্ট্রোল রুমের নম্বর।

নদীয়ার শান্তিপুর রেলওয়ে স্টেশনে, দেখা গেলো তৎপরতা। প্লাটফর্মের উপর যাত্রীদের সুবিধার্থে  টাঙ্গানো ফ্যান ঝড়ের হাওয়ায়, যাতে নষ্ট না হয়, এবং বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট না হতে পারে তার জন্য নেওয়া হচ্ছে বিশেষ ব্যবস্থা। এদিন প্লাটফর্মে থাকা প্রায় ৩২ টি ফ্যান খোলা হয় রেলওয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে। জংশন স্টেশন হিসেবে, অনেক ট্রেন থাকার কথা কারশেডে, কিন্তু সে গুলোকে আগেই স্থানান্তরিত করা হয়েছে, কাঁচরাপাড়া ওয়ার্কশপ, হাওড়া, কাঁকুড়গাছি, বিভিন্ন জায়গায়।  লকডাউনে বন্ধ রয়েছে ট্রেন চলাচল, তবুও স্টাফ স্পেশাল ট্রেন দুটি শান্তিপুর রেলওয়ে স্টেশনে এক নম্বর এবং দুই নম্বর প্লাটফর্মে রয়েছে। রেল লাইন থেকে বায়ু প্রবাহের ফলে যাতে কোনোভাবেই তা এগিয়ে যেতে পারে, তার জন্য চাকার তলায় কাঠের গুটকা, লোহার স্ক্রিট দেওয়া হচ্ছে। এ বাদেও রেল লাইনের সাথে লোহার শিকল দিয়ে বাঁধা হচ্ছে ট্রেনের মূল অংশের । স্টেশন মাস্টার অচিন্ত্য কুমার রায় জানান, প্রতিটি চাকা অটোমেটিক লক করা থাকে , তবুও বাড়তি সতর্কতা হিসেবে এ ব্যবস্থা নেওয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here