টুডে নিউজ সার্ভিস, বর্ধমানঃ
ধারালো অস্ত্র চালিয়ে ওষুধ ব্যবসায়ীর টাকার ব্যাগ ছিনতাইয়ের ঘটনায় মূল অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ। ধৃতের নাম গণেশ মল্লিক ওরফে বিকি। বর্ধমান শহরের ষাঁড়খানা গলিতে তার বাড়ি। রবিবার রাতে শহরের লক্ষ্মীপুরমাঠ এলাকার একটি পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। ছিনতাইয়ে জড়িত থাকার কথা ধৃত কবুল করেছে বলে পুলিশের দাবি। গণেশ দীর্ঘদিন ধরে ডাকাতি ও ছিনতাইয়ে জড়িত। তার বিরুদ্ধে কলকাতার ভবানীপুর, পর্ণশ্রী, আলিপুর, বড়বাজার, তারাতলা ও শেক্সপীয়র সরণি থানায় ডাকাতি, ছিনতাই, চুরি প্রভৃতি মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। সোমবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হয়। ছিনিয়ে নেওয়া বাকি টাকা উদ্ধারের জন্য ধৃতকে ৭ দিন নিজেদের হেফাজতে নিতে চেয়ে আদালতে আবেদন জানায় জানানো হয়। ধৃতের ৪ দিনের পুলিসি হেফাজত মঞ্জুর করেন সিজেএম।

পুলিশি সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ এপ্রিল রাতে বর্ধমান শহরের রাজগঞ্জ মালিরবাগানের বাসিন্দা লিটন মজুমদার ওষুধের দোকান বন্ধ করে স্কুটি নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। বাড়ির কাছেই বাইকে চেপে আসা কয়েকজন দুষ্কৃতী তাঁর উপর হামলা চালায়। তাঁর টাকার ব্যাগটি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে দুষ্কৃতীরা। তাতে তিনি বাধা দেন। দুষ্কৃতীরা ছুরি দিয়ে কুপিয়ে জখম করে তাঁর কাছ থেকে টাকার ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে পালায়। ব্যাগে লক্ষাধিক টাকা, মোবাইল ও গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র ছিল। ঘটনার দিনই তাঁর ভাই রিপন মজুমদার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তদন্তে নেমে পুলিশ তিন জনকে গ্রেপ্তার করে। শহরের বিসি রোড ও কাঁটাপুকুর এলাকায় আজাদের বাড়ি। বাকিদের বাড়ি রায়না থানার মূলকাঠি গ্রামে। মিরাজ ও সাবির বর্তমানে পুলিশি হেফাজতে রয়েছে। আজাদ বিচার বিভাগীয় হেফাজতে রয়েছে। ধৃতদের কাছ থেকে ১২ হাজার ৫০০ টাকা ও একটি মোবাইল বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। গণেশই ঘটনার মূল পাণ্ডা, সেই পুরো বিষয়টি পরিকল্পনা করে বলে জানা গিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here