নিখিল কর্মকার, নদীয়াঃ ১ জুলাই ডাঃ বিধান চন্দ্র রায়ের জন্মদিন। নদীয়ার কল্যাণীতে  ডাঃ বিধান চন্দ্র রায়ের মূর্তিতে মাল্যদান করে জন্মদিন পালিত হল। ডাঃ বিধানচন্দ্র রায়ের নামের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিকভাবে জড়িত কল্যাণী শহরের নামটি। ডাঃ বিধানচন্দ্র রায় বাংলার মুখ্যমন্ত্রী থাকা কালীন এই কল্যাণী শহরকে প্রতিষ্ঠা করেন। পাশাপাশি কল্যাণীতে একের পর এক শিল্প গড়ে তোলেন। যার কারনেই এই কল্যাণী শহরকে শিল্পাঞ্চল শহর বলা হয়। তাই কল্যাণী শহরের একাধিক পার্ক পৌরসভাসহ বিভিন্ন জায়গাতেই রয়েছে ডাঃ বিধানচন্দ্র রায়ের মূর্তি। এদিন মূলত বিদ্যাসাগর মঞ্চের সামনের পার্কে, বুদ্ধ পার্কে ও বিধান পার্কে ডাঃ বিধানচন্দ্র রায়ের মূর্তিতে মাল্যদান ও শ্রদ্ধার্ঘ্যের মাধ্যমেই জন্মদিবস পালন করা হয়। 

 এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কল্যাণী শহরের বিশিষ্ট জনেরা উপস্থিত ছিলেন পৌর কর্মী থেকে বিভিন্ন আধিকারিকরা। এক সময় শিল্প নগরী হিসেবে কল্যানী শিল্পাঞ্চলে চিহ্নিত করা হতো। আর এই কল্যানী শিল্পাঞ্চলে শিল্প স্থাপনের মূল কান্ডারী ছিলেন তৎকালীন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বিধানচন্দ্র রায়। ৩৪ বছর বাম ক্ষমতায় থাকার পর বর্তমান সরকারের আমলেও কল্যানী শিল্পাঞ্চলের কলকারখানা থেকে ফ্যাক্টরি সবই ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। তবে পুনরুজ্জীবিত জন্য চেষ্টা চলছে এই শিল্পাঞ্চলকে। কিন্তু প্রশ্নটা থেকেই যাচ্ছে এত বছরেও যখন তৈরি শিল্প একে একে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে সেখানে আবার কি শিল্প বা কারখানা তৈরি হবে ? এখন সেটাই দেখার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here