টুডে নিউজ সার্ভিস, বর্ধমানঃ পূর্ব বর্ধমান জেলার বর্ধমান ১ ব্লকের খেতিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের টুব গ্ৰামে মৃত যুবকের বাড়ি পরিদর্শনে এলেন মঙ্গলবার জাতীয় তপ শিলি উপজাতির অনন্ত নায়েক সহ প্রতিনিধি দল। তাদের সঙ্গে ছিলেন পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ আধিকারিক ডি.এস.পি হেডকোয়ার্টার সৌভিক পাত্র তারা টুব গ্রামে মৃত যুবকের বাড়ি যান। সেখানে তারা মৃত যুবকের স্ত্রী ও পরিবারের লোকজনদের সাথে কথা বলেন। তবে সমস্যা হলো প্রতিনিধিদের কথা বুঝতে না পারায় কিছুই বুঝে উঠতে পারেননি পরিবারের লোকজনেরা।গরু বিক্রিকে কেন্দ্র করে ঘটনার সূত্রপাত। 

মৃত সোম হাঁসদার স্ত্রী চাঁদমনি হাঁসদা বলেন তাদের একটি গরু হারিয়ে যায়। গরুটি খাট জুলিতে দুদিন বাঁধা ছিলো। এরপর যখন খাট জুলি থেকে গরুটি আনতে গেলে স্থানীয় ক্লাবের সদস্য তার কাছ থেকে এক হাজার টাকা চায়। নিজের কাছে গচ্ছিত টাকা না থাকার ফলে খাটজুলি এলাকার গরুর পাইকার সাবিরের কাছে গরুটিকে বিক্রি করা হয়। গত ২১ মে বৃহস্পতিবার সেই টাকা আনতে গেলে সোম হাঁসদার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়না। এই বিষয়ে দেওয়ান দিঘি থানায় অভিযোগ দায়ের করে সোমের স্ত্রী চাঁদমনি হাঁসদা। এরপর ওই কাঁদর গায়ে এলাকায় হাত পা বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায়। তবে মৃতর পরিবারের দাবি এই ঘটনার জন্য গরু পাইকার সাবির দাই। সে এই কাজের সাথে যুক্ত আছেন বলে দাবি করেন মৃতর স্ত্রী।দোষীদের কঠর স্বাস্তির দাবি জানান তিনি। এদিন মৃত যুবকের বাড়ি পরিদর্শনে এলেন জাতীয় তপশিলি উপজাতীর প্রতিনিধি দল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here