দেবজিৎ দত্ত, বাঁকুড়াঃ সব ছেলেমেয়ের কাছেই বিয়ে মানে একটা স্বপ্ন। আর সেই মুহুর্ত বেশিরভাগের ক্ষেত্রেই জীবনে একবারই আসে। গতানুগতিক চিন্তাধারায় আমরা জানি বিয়ে মানে শুধু দুটো মনেরই মিল নয়, মিল হয় দুই পরিবারের। তাই বিয়ের আগে নিজেদের সুসজ্জিত করতে সবাই জীবনের জমানো সবকটা পুঁজি খরচ করে কিনে ফেলে সাজসজ্জার জিনিস। কিন্তু বিবাহের দিন আসার পূর্বেই  সেই জিনিস যদি চুরি হয়ে যায় এর থেকে বড় আক্ষেপ আর কিছুই থাকেনা।

 সমস্ত খবর পেতে আমাদের WhatsApp গ্রুপে জয়েন্ট করুন : https://chat.whatsapp.com/J2ZCZS26NOzBfHUobcE0YN

 এরমই এক ঘটনা ঘটেছিল ইন্দাস থানার অন্তর্গত আকুই এক নম্বর  অঞ্চলের আকুই গ্রামে স্বাগতা ভট্টাচার্য-এর। আগামী ৯ মার্চ অর্থাৎ বাংলার ২৪ ফাল্গুন তার বিবাহের দিনক্ষন ঠিক হয়, কিন্তু বিবাহের পূর্বে বাঁধে বিপত্তি গত ১৭ ফেরুয়ারি বিবাহের জন্য কেনা সোনার গহনা, সাজসজ্জার জিনিস, মোবাইল ফোন, নগদ কিছু টাকা, এমনকি বেনারসি পর্যন্ত বাড়ি থেকে চুরি হয়ে যায়। সাথে সাথে পুলিশের দ্বারস্থ হয় ঐ মহিলা। 

স্বাগতা দেবীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ময়দানে নামে ইন্দাস থানার পুলিশ। তদন্ত চালিয়ে ছয় ঘন্টার মধ্যে পুলিশ গ্রেফতার করে অভিযুক্ত ব্যাক্তিকে এবং চুরি হয়ে যাওয়া সামগ্রিও উদ্ধার করা হয় তার কাছ থেকে। অবশেষে কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী চুরি হয়ে যাওয়া গয়নাগাটি, বেনারসি সব কিছু পুলিশের তরফ থেকে ফিরিয়ে দেওয়া হলো স্বাগতা দেবীর হাতে। বিষ্ণুপুর মহাকুমা এসডিপিও কুতুবউদ্দিন খান, সোনামুখী সিআই গৌতম তালুকদার ও ইন্দাস থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক সোমনাথ পাল উপস্থিত থেকে স্বাগতা ভট্টাচার্য ও তার পরিবারের হাতে হারিয়ে যাওয়া সমস্ত সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। বিয়ের আগে সমস্ত চুরি হয়ে যাওয়া সামগ্রি ফেরত পেয়ে পুলিশকে ধন্যবাদ জানিয়েন স্বাগতা দেবী।

বিষ্ণুপুর মহকুমা এসডিপিও জানান , এই ধরনের ঘটনা এড়াতে আগামী দিনে পুলিশ আরও বেশি সক্রিয় থাকবে। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here