দীপক মুখার্জি বীরভূমঃ জেদ, জেদ যেমন করে মানুষের জীবনে কখনও ধ্বংস ডেকে আনে। ঠিক তেমনি করে যে কখনও কখনও ভালো দিকে চালিত হলে মানুষের জীবনে সাফল্য এনে দেয়। আজ ভারতবর্ষে তথা বিশ্বের দরবারে বাঙালির মুখ উজ্বল করল বাংলারই এক মহীয়সী গরিমা মহি মেয়ে রষ্ণী সিং। অলিপ স্কোয়ার্ড প্রোডাকশনের ২০২১ এর শ্রেষ্ঠ সুন্দরীর খেতাব অর্জন করে দেখালেন বাংলারই গর্ব বাংলার এক জেদি একগুঁয়ে অঙ্গীকারবদ্ধ। মহীয়সী রষ্ণী‌। রষ্ণী শব্দের অর্থ হল আলোকরশ্মি। এই রষ্ণী সিং সত্যি প্রমাণ করলেন যে উনি বাঙালির যে গর্ব আছে সেই গর্বের সূর্যের রশ্মি বা রশ্মি তিনি নিজেই। তার এই বৃহৎ সাফল্য আজ সারাবাংলাকে গড়বা নৃত্য করল সমগ্র দেশবাসীর কাছে। 

এই ইভেন্টের নিমন্ত্রণ কর্ত্রী ছিলেন অনু মল্লিক তিনি হলেন (এম আই ডাবলু ডি) এর প্রতিযোগিতা পরিচালক। তিনি নিজেই বলেছেন আমি নিজেকে অত্যন্ত খুশি এবং সমৃদ্ধ মনে করছি। এই প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে যার দ্বারা স্ত্রী সত্তা বা নারীসত্ত্বার বহুমুখী প্রতিভা ও দক্ষতা সারাদেশব্যাপী প্রসারিত ও বিশ্বের দরবারে প্রতিভা হলো। নারীসত্ত্বা আজ আবার প্রমাণ করে দিল যে তাদের সান্মানিক প্রয়াস অনায়াসে সাফল্য আনতে পারে। তাদের কোন বিষয়ে বা কোন ভাবেই তাদেরকে পিছিয়ে পড়ে আছে এটা ভাবায় সঠিক হবে না বলে আমি মনে করি। তিনি আরও জানালেন, যে নিজের যে দল বা নিজের যে সঙ্ঘবদ্ধ দল যেখানে রয়েছেন মিস অর্চনা বনসল,  মিস ইন্দ্রানী গিগো, এবং মনীশা যাদব যাদের উনি অনেক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন তার এই ইভেন্টে সাফল্যের সাথে উৎযাপন করতে এই প্রতিযোগিতার যিনি ডেজলির ক্যাটাগরী বা ঝলমলে বিভাগের বিজয়ী হলেন রষ্ণী সিং।

তিনি অর্থাৎ রষ্ণী সিং আনন্দের সাথে জানিয়েছেন, এটা হল সেই মঞ্চ যেখানে সমস্ত পর্যায়ের মহিলারা বিবাহের পরে ও নিজের দক্ষতা ও প্রতিভার প্রদর্শন করতে সমর্থক হয়ে থাকে এবং এর মধ্য দিয়ে তারা নিজের স্বপ্নকে পূরণ করতে পারে। আমরা এনাদের অর্থাৎ সমগ্র সঙ্ঘবদ্ধ দলটিকে বা স্পেশাল টিমটিকে অসংখ্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করি এবং তাদের এই আত্মিক ও আন্তরিক সমর্থনকে আমরা করজোড়ে কুর্নিশ জানাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here