নিখিল কর্মকার, নদীয়াঃ মানসিক অবসাদে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হলো ১৮ বছরের স্বপ্না দাস। ঘটনাটি ঘটেছে শান্তিপুর ব্লকের বাগ আচড়া বাজারপাড়া এলাকায়। পরিবার সূত্রে জানা যায়, স্বপ্না হাজরা বাগআঁচড়া উচ্চবিদ্যালয়ে এবছর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলেন। মাঝেমধ্যেই অতিরিক্ত নিজে থেকেই পড়াশোনার চাপ নিত, পরিবারের কারোর সাথে বেশি একটা কথা বলতো না। পড়াশোনার চাপের কারণে বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী স্বপ্না হাজরা। বেলা সাড়ে বারোটা নাগাদ স্বপ্না হাজরার মা ঘরের ভেতরে ঢুকে দেখে মেয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে মা চিৎকার করতেই ছুটে আসে এলাকার লোকজন। সেখান থেকেই স্বপ্নাকে উদ্ধার করে শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। স্বভাবতই ছাত্রীর অস্বাভাবিক মৃত্যুকে ঘিরে কান্নায় ভেঙে পড়ে গোটা পরিবার এছাড়াও এলাকায় নেমে আসে শোকের ছায়া।

 এ বিষয়ে জ্যাঠতুতো দাদা জানান, সপ্নার নিজে থেকেই পড়াশোনার  চাপের কারণে বেশ কয়েক মাস যাবত একটু মাথার সমস্যা দেখা দেয় এইভাবে যে হঠাৎ এই ঘটনা ঘটাবে তা বুঝতে পারিনি কখনও পরিবার। মৃতদেহটি উদ্ধার করে শান্তিপুর থানার পুলিশ ও ময়না তদন্তের জন্য রানাঘাট মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here