দেবজিৎ দত্ত, বাঁকুড়াঃ
করোনার গ্রাসে পেটে টান ভবঘুরেদের সে কথা মাথায় রেখেই কোতুলপুর পুলিশের মানবিক মুখ। করোনার কারনে, দোকানপাট সবকিছুই বন্ধ ভবঘুরেদের অন্নসংস্থান হচ্ছে না সেই কারণেই কোতুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক মানস চ্যাটার্জির নেতৃত্বে ২১ জন ভবঘুরের দুপুরের খাওয়া দাওয়ার বন্দোবস্ত করলেন। সোমবার থেকে শুরু ভবঘুরেদের মধ্যাহ্নভোজন। তাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয় খাবার মঙ্গলবার বাঁকুড়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গনেশ বিশ্বাস তিনি রায়বাঘিনী গ্রামের ভবঘুরের মুখে খাবার তুলে দেন । সঙ্গে ছিলেন কোতুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক মানস চ্যাটার্জী কোতুলপুর ব্লকের বিভিন্ন এলাকার যেসকল ভবঘুরে আছে তারা করোনার কারনে খাওয়া-দাওয়া জুটছে না তাই কোতুলপুর থানার এই নয়া উদ্যোগ। বাঁকুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গনেশ বিশ্বাস জানান, ২১ জন ভবঘুরেকে আমরা খাওয়ানোর ব্যবস্থা করে চলেছে আরও যদি কোন ভবঘুরে থাকে তাহলে তাদেরকেও খাওয়ানো হবে এটা ধারাবাহিকভাবেই চলছে এবং চলবে। কোতুলপুরের আর এক ভবঘুরের মুখে খাবার তুলে দেন কোতুলপুর থানা ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক মানস চ্যাটার্জি ওই ভবঘুরে তিনি জানান কয়েকদিন ধরে পেট পুরে খেতে পাচ্ছিলেন না পুলিশের এই উদ্যোগে এবং পেট ভরে খাবার পেয়ে খুবই খুশি এবং উপকৃত কোতুলপুরের আরেক ভবঘুরে  তিনি জানান পুলিশের অন্যরূপ দেখেছি কিন্তু আজকের এই পুলিশের ভূমিকায় খুবই খুশি। 

কোতুলপুর এলাকার আরো দুই ভবঘুরের মুখে সাংবাদিকদের মাধ্যমে খাবার তুলে দেয়া হয় সাংবাদিক বলরাম চক্রবর্তী এবং আমির খান দুই সাংবাদিকের থানার প্রিয় খাবার ভবঘুরেদের মুখে তুলে দেন। কোতুলপুর থানার পুলিশের এই মানবিক মুখ দেখে সকলেই প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here