ঝিলিক দাস, বীরভূমঃ এক বিজেপির বুথ সভাপতি মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল বীরভূমের খয়রাশোল থানার হজরতপুরে। মৃত বিজেপি কর্মীর নাম ইন্দ্রজিৎ সূত্রধর। মঙ্গলবার সকালে বাড়ির সামনে ঝুলন্ত অবস্থায় মৃতদেহ উদ্ধার করে খয়রাশোল থানার পুলিশ। মৃত ব্যক্তির দুটি পা কাপড় দিয়ে বাঁধা ছিল।  বিজেপি কর্মীর মৃত্যু নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক টানাপোড়েন, দুবরাজপুর বিধানসভায় বিজেপির বিধায়ক অনুপ সাহা দাবি করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের খেলা হবে স্লোগানে   উৎসাহিত হচ্ছে দুষ্কৃতীরা, যার জেরে তারা খুনের মতো জঘন্য অপরাধ ঘটানোর সাহস পাচ্ছে। এই খুনের সাথে যারা জড়িত তাদেরকে যেন পুলিশ অবিলম্বে গ্রেফতার করে এটাই তার দাবি। 

বিজেপি বিধায়কের এই দাবি উড়িয়ে দিয়ে স্থানীয় তৃনমুল নেতা স্বপন সেন দাবী করেছেন , এই খুনের সাথে তৃণমূল কংগ্রেসের কোনো যোগ নেই। তিনি বলেন , গত ২৮ জুলাই আরেক বিজেপি কর্মী নির্মল সেনের স্ত্রীকে নিয়ে তারাপীঠে পালিয়ে যায় এই মৃত বিজপির নেতা ইন্দ্রজিৎ সূত্রধর। সেই মর্মে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানায় নির্মল সেন। আগেরদিন পুলিশ গৃহবধূ কে উদ্ধার করে নিয়ে এসে স্বামী নির্মল সেনের কাছে ফিরিয়ে দেয়। তারপর এদিন সকালে বিজেপির বুথ সভাপতির মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

   তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা স্বপন সেনের বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে মৃত বিজেপির বুথ সভাপতির স্ত্রী পূজা সূত্রধর বলেন , গ্রাম সূত্রে জানতে পারি গত ২৮ তারিখে নির্মল সেনের স্ত্রী রুবি সেন কে নিয়ে তারাপীঠে পালিয়ে যায় আমার স্বামী। তারপর যোগাযোগ করতে পারিনি ফোন বন্ধ থাকায়।  সকালে শুনলাম গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। খয়রাশোল থানার পুলিশ ইতিমধ্যে বিজেপির নির্বাচনী এজেন্ট নির্মল সেন ও তার স্ত্রী রুবি সেন কে আটক করেছে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here