Breaking News

বাউন্সারদের হাতে আক্রান্ত পানশালার ভুজিয়া ব্যবসায়ী

   

টুডে নিউজ সার্ভিস, বর্ধমানঃ বর্ধমানের জেলখানা মোড় এলাকার একটি পানশালায় ভুজিয়া সরবরাহের দরুন তাগাদা করতে গিয়ে ওই পানশালারই কয়েকজন বাউন্সার এবং স্থানীয় কিছু দুষ্কৃতী বেধড়ক মারধর করল গৌতম সাউ নামে এক ভুজিয়া ব্যবসায়ীকে। গৌতম সাউ অভিযোগ করেন, তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলারও চেষ্টা করেছে ওই দুস্কৃতিরা। দুষ্কৃতীদের মধ্যে একজন তাঁর কাঁধে কামরেও দেয়। কোনো রকমে দুষ্কৃতীদের হাত থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে সে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জরুরি বিভাগে চিকিৎসার জন্য চলে আসেন। তাঁর বুকে, মুখে, পায়ে চোট লেগেছে। 

গৌতম সাউ আরও জানান, শনিবার দুপুরে তিনি অন্যান্য দিনের মতোই এদিনও জেলখানা মোড়ের ওই রেস্টুরেন্টে কাম বার কাম হোটেলে ভুজিয়া সরবরাহ বাবদ টাকা আনতে গিয়েছিলেন ম্যানেজারের কাছে। ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলে লিফটে নীচে নামার সময় তাঁকে ৭ জন মিলে বেধড়ক মারধর করতে শুরু করে। তাদের হাতে প্লাস্টিকের পাইপ ছিল। মারধরের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে সে ফের ম্যানেজারের ঘরের দিকে ছুটে চলে আসলে সেখানেও ওই দুষ্কৃতীরা তাঁকে একটি হোটেলের ঘরের মধ্যে ঢুকিয়ে তাঁর বুকে, পেটে,  মুখে কিল, চর, ঘুষি মারতে থাকে। ওই হোটেলের ম্যানেজার ছুটে এসে গৌতম সাউ-কে বাঁচানোর চেষ্টা করলে তাঁর সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করে মারমুখী ওই বাউন্সার ও বহিরাগতরা। 

হোটেলের পক্ষ থেকে বর্ধমান থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। বর্ধমান থানা সূত্রে জানা গেছে, আহত ব্যবসায়ী এদিন সন্ধ্যায় সাত জন ব্যক্তির নামে একটি লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত শুরু করছে। এদিকে এই ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন খোদ ওই পানশালার কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে, অভিযোগকারী গৌতম সাউ জানিয়েছেন, হোটেলের এবং যে শপিং মলের চারতলায় এই পানশালাটি রয়েছে তাদের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখলেই গোটা ঘটনার বিষয় পরিষ্কার হয়ে যাবে। তিনি জানিয়েছেন, দোষী ব্যক্তিরা যাতে উপযুক্ত সাজা পায় তার জন্যই তিনি বর্ধমান থানায় লিখিত অভিযোগ জমা করেছেন।পাপাই সরকারের রিপোর্ট তারা নিউজ পূর্ব বর্ধমান।

About Burdwan Today

Check Also

ধামাচিয়ায় ৪০ লিটার চোলাই মদ সহ আটক ১

জ্যোতির্ময় মণ্ডল, মন্তেশ্বরঃ ভোট পরবর্তী সময়ে চোলাইয়ের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে ৪০ লিটার চোলাই মদ সহ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *