রমা চ্যাটার্জি, দক্ষিণ দিনাজপুরঃ নাম তার লক্ষী। ২৬ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন গোটা দেশ যখন আনন্দে মশগুল, ঠিক তখন লক্ষী জন্মের পড়েই হাসপাতালের বিছানায় মাতৃহারা হয়! পিতা নিরঞ্জন হাঁসদা গরীব আদিবাসী দিনমজুর!দিন আনা দিন খাওয়া ঘরে জন্মের পর থেকেই মা হারা লক্ষী। কিন্তু মা’ না থাকলেও মায়ের দুধের অভাব বুঝতে দেয়নি  এলাকার পতিরাম নাগরিক ও যুব মঞ্চের মামা’রা। বিগত ছয় মাস ধরে ল্যাক্টোজেন দুধের প্যাকেট নিয়ে লক্ষীর জন্য হাজির থেকেছে পাড়াতুতো এই মামারা। শুধু তাই নয় তাকে দেখভালের পাশাপাশি কাজ হারিয়ে ঘরে বসে থাকা তার বাবার খাদ্য খাবারও জুগিয়ে গেছে মাসভর তার এই মামাাারর। সেই পতিরাম নাগরিক সমাজ ও যুব সমাজ মঞ্চের মামারাই আজ তাদের আদরের লক্ষী ছয় মাসে পা দিতেই মেতে উঠলো আদরের ভাগ্নী লক্ষীর অন্নপ্রাসনে। 

মামার বাড়ির আদর বা বাসা  না থাক ভালবাসা আছে বলে  মামার বাড়ির ভাত নিল  শিশু লক্ষী।নতুন থালা বাসন ও পঞ্চব্যাঞ্জনের পাশাপাশি  নতুন জামা আর পায়েসে জমজমাট লক্ষীর মামাদের দেওয়া  দক্ষিন দিনাজপুরের পতিরাম থানার বর্ষাপাড়ায় আদিবাসি গ্রামে আজকের এই অন্নপ্রাসন অনুষ্ঠান ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here