তারকনাথ সিট, মুর্শিদাবাদঃ কল্যাণপুরের সঙ্গে শহর কান্দিকে বিচ্ছিন্ন করেছে কানাময়ূরাক্ষী নদী। কল্যাণপুরের লোকেদের প্রতিনিয়ত যাতায়াত করতে হয় কান্দি শহরে বিভিন্ন কাজে, ব্রীজ নেই বলাটা ভুল,আছে দুটি ব্রীজ একটি বাস স্ট্যান্ডে আরেকটি ৪ কিলোমিটার দূরে বাইপাসে তবে বাস স্ট্যান্ড হয়ে কান্দি শহরে ঢুকতে সুভাষ সবজি মার্কেট সংলগ্ন রাস্তা সংকীর্ণ হবার কারণে প্রতিনিয়ত লেগেই থাকে যানজট অন্যদিকে বাইপাস হয়ে যদি তারা কান্দি শহরে আসে সেক্ষেত্রে সময় লেগে যায় অনেকটাই যার জন্য কল্যাণপুর গ্রামবাসীদের দাবি ছিল কান্দি থানার মোড়ে কান ময়ূরাক্ষী নদীর উপর একটি ব্রীজ করা। বিগত ১৫ বছর ধরে এই ব্রীজের দাবি উঠতে থাকায় রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীরা বার বার আশ্বাস দিয়েছে ব্রীজ করার, কখনও পরিবহনমন্ত্রী কখনওবা সেচমন্ত্রী বিভিন্ন পদাধিকার মন্ত্রী-সন্ত্রিদের আশ্বাস মেলে ব্রীজ করে দেবার, ব্রীজের টাকা পাশ করে সরকার তবে ব্রীজ আজও পাইনি কল্যাণপুরবাসী।  তবে ব্রীজের বদলে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি অস্থায়ী সেতু করা হয় যা সামান্য বৃষ্টি হলেয় ভেঙে যায়।

 শুধুই যে এই ব্রীজ হলে কল্যাণপুরের কিছু গ্রামবাসীরা উপকৃত হবে তাই নয় কান্দি থানার মোড় সংলগ্ন কানময়ূরাক্ষী নদী চত্বরের কান্দি মহকুমা ব্যবসায়ী সমিতির যে সমস্ত ট্রান্সপোর্টের মাল নামতে আসে ট্রাক চালকেরা তারাও উপকৃত হবে কারণ শহরের যানজট কমানোর জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে একাধিক সময় নো এন্ট্রি করা হয় কান্দি শহরে আর নো এন্ট্রির ফলে ট্রাক চালকদের প্রচুর সময় অপচয় হয় পাশাপাশি কান্দি টোটো ইউনিয়ন এর সম্পাদক মিরাজ সেখ জানিয়েছেন ওই ব্রীজ হলে টোটো চালকরাও উপকৃত হবে যানজটমুক্ত হবে শহর। কান্দিবাসী এখনও আশায় রয়েছে এই ব্রীজ হবে কান্দিতে যানজটমুক্ত হবে শহর,কিন্তু আদৌ কি ব্রীজ পাবে কান্দির মানুষ তা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েই যাচ্ছে। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here