অশোক মজুমদারঃ কবীর সুমন অসুস্থ। খবরটা সকালেই পেয়েছি। দিদিও নবান্নে প্রেসের সাথে কথা বলেই বিকেলে এসএসকেএম ছুটলেন। কিছুক্ষণ ছিলেন। সব খোঁজ নিলেন। 

সুমনদার সঙ্গে দিদির আত্মিক সম্পর্ক। সেই কবে থেকে উনি দিদির সংগ্রামের সাথী। দিদির লড়াই নিয়ে কত গান উনি লিখেছেন। দিদি তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হবেনই জোর গলায় বারবার ইলেকশনের সময় দাবী করতেন। প্রতিবার ধর্মতলার একুশে জুলাই আর সুমনদার মাউথ অর্গানের সুর অনেক বছর ধরেই অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। বয়সে ছোটো হলেও দিদিকে অসম্ভব শ্রদ্ধা করেন সুমনদা। 

সুমনদা যখন জার্মানি থেকে এসে ভবানীপুরের ভাড়াবাড়িতে পাকাপাকিভাবে থাকতে শুরু করলেন তখন থেকেই ওনাকে চিনি। সে সব দিনের কথা আরেকদিন বলবো। ব্যক্তিগত চেনাজানার পরিসর বাদ দিয়ে সুমনদার গানই সুমনদাকে কাছের মানুষ বানিয়ে ফেলার জন্য যথেষ্ট। আপামর বাঙালির কাছে সুমনদার গান বাঁচার আরেক নাম। যুগ কাল ছাপিয়ে উনি নিজেই আজ একটি প্রতিষ্ঠান। 

সেই সুমনদাকে আজ হসপিটালে দেখে মনটা খুব খারাপ হয়ে গেল। ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাস থাকলে আমি সুমনদাকে ভালো করে দেওয়ার দোয়া চাইতাম। তবে অন্তর থেকে চাই উনি ভালো হয়ে উঠুন। কিন্তু আমি জানি ওনার অগণিত শ্রোতারা দোয়া প্রার্থনা করছে, সুমনদার তাড়াতাড়ি সুস্থতা কামনায়। কারণ আমরা আজও আমাদের মাঝে আরও অনেক গানে, “তোমাকে চাই।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here